সাভারে জমি দখল চেষ্টায় নারকীয় কায়দায় এক পরিবারের ওপর সন্ত্রাসী হামলা।মামলা হলেও মূল আাসামীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে।

0
178


আলোর যুগ রিপোর্ট :-
সাভারে জমি দখল চেষ্টায় নারকীয় কায়দায় এক পরিবারের ওপর সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়েছে ।মামলা হলেও মূল আাসামীরা ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে বাদী পক্ষ কে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে ফলে মামলা করেও এখন আসামীরা ভীতিকর অবস্থায় আছে। আসামীদের আক্রমনে আহত স্বজনেরা হাসপাতালে চিকিৎসাীন থাকায় কয়েক লাখ টাকা ব্যয় করে নিস্বঃ হয়ে পড়েছে। আাসামীরা প্রভাবশালী চক্রের সহায়তায় কোটি টাকার জমি দখলে নেয়ার পাঁয়তারা করছে। মামলায় প্রথম দিকে কয়েকজন গ্রেফতার হলেও মামলার মূল আসামীরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে থেকে হুমকিমকি দিচ্ছে বলে বাদী পক্ষ অভিযোগ করেছেন। আাসামীদের অত্যাচার ও হুমকি ধামকিতে ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে বাদীপক্ষ সাভার থানায় পুনরায় অভিযোগ দিলে তা জিডি আকারে লিপিবদ্ধ করা হয় এবং তদন্ত অফিসার ইন্সপেক্টর জাহিদুল ইসলামকে ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ দেয়া হয়।

সারজমিন তদন্ত করে জানা যায়,সাভারে মহাসড়কের পাশে কোটি টাকা মূল্যের সাড়ে ৬ শতাংশ জমি দখলের পাঁয়তারা করছে আাসামীদের সাথে যুক্ত একটি প্রভাবশালী মহল। জমি দখলে বাধা দিতে গেলে জমির মালিক পক্ষের ওপর সন্ত্রাসী হামলার জের ধরে মামলা হলেও মূল আসামীরা ধরা ছোঁয়ার বাহিরে রয়ে হুমকি প্রদান করছে বাদীপক্ষদের। তাদের হামলায় আহত জমির মালিকেরা অনেকই এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। চিকিৎসার পিছনে লাখ লাখ টাকা ব্যায় হলেও আইনগত কোন সহায়তা পাচ্ছে না জমির মালিকরা। হাসপাতালের আইসিইউতে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে বাদীর স্ত্রী । মামলার আসামীদের গ্রেফতারের দাবী জানিয়েছে বাদী পক্ষ। তবে পুলিশ বলছে আসামীরা পলাতক রয়েছে।
এলাকাবাসীরা জানান, কোটি টাকার জমি হাতিয়ে নেয়ার জন্য করোনা আতঙ্কের মধ্যেও সাভারের হেমায়েতপুর এলাকার যাদুরচরে জমির মালিকদের বাড়ীতে প্রকাশ্য দিবালোকে হামলা চালানো হয়। স্থানীয় মো: মনির হোসেন ও মো: মুসার নেতৃত্বে মামুন, লিটন, শফিক, তুহিন ও পলক সহ প্রায় ১৫ জনের একদল সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে জমির মালিক সোহরাব হোসেনের বাড়িতে হামলা চালায়।এই ঘটনায় গত ২০ এপ্রিল জমির মালিক যাদুরচরের মৃত সিরাজ উদ্দিনের ছেলে মো: সোহরাব হোসেন বাদী হয়ে সাভার মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। হামলায় বাদী সহ তার স্ত্রী, ভাতিজা, ভাবী, ছেলে আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ব্যবসায়ীর স্ত্রী হেলেনা বেগম বর্তমানে স্থানীয় একটি হাসপাতালে আইসিইউতে মৃত্যু শয্যায় চিকিৎসাধীন আছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, হেমায়েতপুরের যাদুরচর এলাকার মো:সোহরাব হোসেনের রাস্তার পাশে অবস্থতি কোটি টাকা মূল্যের জমি জাল দলিল বানিয়ে জবর দখল করতে চেষ্টা করে মামলার প্রধান আসামী মো: মনির হোসেন সহ তার দলবল । এর জের ধরে আদালতে মামলা দায়ের হলে সম্প্রতি একটি মামলায় আদালত বাদী সোহরাব হোসেনের পক্ষে রায় দেয়।
আদালতের মামলা সুত্রে জানা যায়, ঐ বিলামালিয়া মৌজায় অবস্থিত ৬.৫০ শতাংশ জমির সি এস রেকর্ড এর মালিক ছিলেন, শেখ গণি গং পিতা শেখ রায়হান । পরবর্তিতে এস এ রেকর্ডের ২২৬ দাগে ৬.৫০ শতাংশ জমি তাদের ওয়ারিশ সিরাজ উদ্দিনের নামে রেকর্ডভুক্ত হয় এবং এস এ মিউটেশন কেস নং ৪৯১৮/৯৩-৯৪ নাম্বার সেরাজ উদ্দিনের নামে নাম খারিজ করানো হয়। পরবর্তিতে আর এস রেকর্ডওে ৫৭২৭/০৪ নামজারী কেসের মাধ্যমে ২৬৩৯ নম্বর জোতেও সিরাউদ্দিনের নামে ৬.৫০ শতাংশ রেকর্ডভুক্ত হয়।এরই ধারাবাহিকতায় ওয়ারিশ হিসেবে সোহরাব গংদের নামে ৩১০৩/১৮-১৯ এবং ৩৬২৯ /১৮-১৯ নামজারী কেসের মসাধ্যমে আর এস নাম মিউটেশন সম্পন্ন করা হয়। মামলার বাদী সোহরাব হোসেন বলেন, আসামীরা আমাদের বিরুদ্ধে ঢাকা জেলা যুগ্ন জজ আদালতে জমির মালিকানা দাবী করে দেওয়ানী মোকদ্দমা নং ৯৬৮/১৮ দায়ের করলে দীর্ঘ শুনানী শেষে বিজ্ঞ আদালত বিগত ১৪/০৫/১৯ ইং তারিখে তা নামঞ্জুর করে খারিজ করে দিন। এ ছাড়াও বাদী পক্ষর পক্ষ থেকে আসামীদের বিরুদ্ধে ফৌজদারী কার্য্যবিধি আইনে ১৪৫ ধারায় মামলা দায়ের করলে দখল প্রতিবেদন টি বাদী পক্ষের অনুকুলে দেয়া হয়। প্রতিবেদনে জানানো হয় বাদী পক্ষ বিলমালিয়া মৌজাস্থিত আর এস ২৪৬ নং খতিয়ানের ২৪৮ নং দাগের ০.৩১ একর জমির কাতে ০.০৫৬০ একর জমির ওপর ৬ তলা ভবন নির্মান কাজ করেছেন। এবং বাদী পক্ষ নালিশি জমির ভোগ দখলে রয়েছে । তিন আরো বলেন , আসামীরা জমি দখল করতে গেলে বাধা দেতে গেলেই তারা দল বল নিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যেই আমাদের ওপর হামলা করেছিল। তাদের ভয়ে এলাকায় কেউ কথা বলা সাহস পায় না। তাদের অত্যাচারে আমরা পুরো পরিবার জিম্মি হয়ে পড়েছি।
সাভার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এএফএম সায়েদ বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। কয়েকজন আসামীকে গ্রেফতার করে আদালতে চালান করা হয়েছে। বাকী আসামীদেরও গ্রেফতার করা হবে। আসামিদের সাথে আদালতে জমির মালিকানা নিয়ে মামলা চলমান আছে।তবে বাদী পক্ষের অভিযোগ স্থানিয় ভাবে বিচার আাচারের আশ্বাস দিয়ে কালক্ষেপন করে তাদের জমির ওপর নির্মাণাধীন ৬ তলা ভবনের কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে।তারা অনতিবিলম্বে আাসামীদের গ্রেফতার করে আইনত ব্যাবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়েছন।