রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২৪
More
    Homeপ্রধান সংবাদআমার ‘গাঙচিল’ যেন ডানা মেলে উড়তে পারে: প্রধানমন্ত্রী

    আমার ‘গাঙচিল’ যেন ডানা মেলে উড়তে পারে: প্রধানমন্ত্রী

    আলোর যুগ রিপোর্ট: বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের তৃতীয় বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ এর উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমার গাঙচিল যেন ভালোভাবে ডানা মেলে উড়তে পারে,  সবাই যত্ন নেবেন।’

    বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) সকালে ফিতা কেটে ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর উড়োজাহাজটি পরিদর্শন করেন তিনি। এসময় ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার ও বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী সেখানে উপস্থিত ছিলেন। .

    প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিমান পরিচলনার ক্ষেত্রে আমি সবাইকেই বলবো আন্তরিকতা নিয়ে, দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে আপনারা এটি পরিচালনা করবেন। কারণ হচ্ছে আজ দেশ যদি উন্নত হয়, অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হয়, দেশের উন্নতি যদি অব্যাহত থাকে  তাহলে সবাই সুন্দর জীবন পাবেন, সুখীভাবে চলতে পারবেন।’

    বিমানের সুনাম বাড়াতে আন্তরিক হওয়ার পরামর্শ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা আশা করি বিমানের সুনাম বৃদ্ধি, যাত্রীসেবার মান উন্নত করা এবং যে বিমানগুলো আমরা এনে দিচ্ছি সেগুলো যথাযথভাবে সংরক্ষণ করা হবে।যারা এর সঙ্গে সম্পৃক্ত আছেন এটা সবার দায়িত্ব।   কারণ এটা নিজের দেশের ও নিজস্ব সম্পদ।  সে কথা মনে রেখে আপনাদের কাজ করতে হবে।’

    এখন আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমাদের (দেশীয়) ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে বিমান কিনবো  যেন অন্যের কাছ থেকে আমাদের ধার না নিতে হয়। অর্থাৎ আমরা নিজের পায়ে দাঁড়াতে চাই। পরবর্তীতে আমরা প্রয়োজন অনুসারে আরও বিমান কিনবো। আমি চাচ্ছি দুটি কার্গো বিমান নেওয়ার জন্য।  আমদানি-রফতানি বৃদ্ধির জন্য কার্গো বিমান আমরা কিনবো।’

    বিমানের রুট বৃদ্ধি প্রসঙ্গে সরকার প্রধান বলেন, ‘বোয়িং থেকে আমাদের নবম প্লেন আসলো। আরেকটা আসলে ১০টি হবে। কাজেই বোয়িং থেকে আমরা ১০টি বিমান কিনলাম। তবে এখনও আমরা আমেরিকা যেতে পারছি না। আশা করি খুব শিগগির এই সমস্যার সমাধান হবে। যে বিমানগুলো কেনা হয়েছে এগুলো সরাসরি আমেরিকা যাওয়ার সক্ষমতা রাখে। আমরা চেষ্টা করছি লন্ডনে আরও স্লট বৃদ্ধি করতে। এছাড়া অন্যান্য দেশেও  চেষ্টা করছি। আমাদের যাত্রীসেবা বাড়ানোর চেষ্টা করছি।’

    প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জাতির জনক আমাদের রক্ত দিয়ে গেছেন। তার রক্তের ঋণ শোধ করতে হবে। ২৯টি বছর হারিয়ে গেছে এটা দুর্ভাগ্যের। এই সময়ে যারা ক্ষমতায় ছিল তারা উন্নয়ন করেনি, করতেও চায়নি। কারণ যারা ছিল তারা স্বাধীনতায় বিশ্বাস করতো না।’

    Javed Mostafa
    Javed Mostafa
    Javed Mostafa is a Bangladeshi journalist and social activist. He has been a journalist for more than Twenty years
    RELATED ARTICLES

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    Most Popular

    Recent Comments