সনের গোলে একধাপ এগিয়ে গেল টটেনহ্যাম হটস্পার্স

0
23
শেয়ার করে সকল কে জানিয়ে দিনঃ

ক্রাইম অনুসন্ধান ডেস্ক : চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফুটবলের অল ইংল্যান্ড কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে সন হিউং মিনের একমাত্র গোলে ম্যানচেস্টার সিটিকে ১-০ ব্যবধানে হারিয়ে সেমি-ফাইনালের পথে একধাপ এগিয়ে গেল টটেনহ্যাম হটস্পার্স। এই জয়ে স্পার্সরা এতটাই উচ্ছসিত হয়ে পড়েছে যে তাদের তারকা অধিনায়ক হ্যারি কেনের ইনজুরির ঘটনাটিও কিছু সময়ের জন্য চাপা পড়ে গিয়েছিল।

মঙ্গলবার স্পার্সদের নতুন স্টেডিয়ামে নাটকীয় এই ম্যাচে সার্জিও এগুয়েরোর পেনাল্টি থেকে নেয়া শটটি রুখে দেন স্বাগতিক গোল রক্ষক হুগো লরিস।

এর পরই ম্যাচের শেষভাগে মরিসিও পচেত্তিনোর দলকে জয় এনে দেন সন। গত সপ্তাহে এই স্টেডিয়ামেই ক্রিস্টাল প্যালেসের বিপক্ষে গোল করেছিলেন সন। তবে ইউরোপীয় আসরে এটিই দক্ষিণ কোরিয়ান এই ফুটবল তারকার প্রথম গোল। যে কারণে ম্যাচটি দারুন একটি মুহূর্ত উপহার দিয়েছে তাকে। এই ম্যাচ জয়ে অবশ্য সমানভাবে গৌরবান্বিত গোল রক্ষক লরিস। কারন এর আগে তিনিই প্রথমার্ধে সিটিজেন তারকা এগুয়েরোর পেনাল্টির বলটি ঠেকিয়ে দিয়েছিলেন।

ম্যাচে স্পার্সদের এই জয়টি ছিল একেবারেই অপ্রত্যাশিত। কারণ সিটিজেনদের বল নিয়ন্ত্রণের ফাঁকে তারা প্রতি আক্রমণের মধ্যেই নিজেদের ম্যাচকে আবর্তন করে রেখেছিল। তাছাড়া দ্বিতীয়ার্ধের সুচনালগ্নে ইংলিশ অধিনায়ক কেন প্রতিপক্ষের ফ্যাবিয়ান ডেলফ এর সঙ্গে সংঘর্ষে আঘাত পেয়ে মাঠ ছাড়ার পর স্পার্সদের জয় পাওয়ার সম্ভাবনা আরো ক্ষীণ হয়ে যায়।

এদিকে মাঠের নিয়ন্ত্রন রক্ষা করার পরও যুতসই কোন আক্রমন রচনা করতে পারেনি পেপ গার্দিওলার শিষ্যরা। যে কারণে নিশ্চিত ড্রয়ের দিকেই যাচ্ছিল ম্যাচটি। এতে সুবিধা হতো সিটিজেনদেরই। কারণ হোম সুবিধা নিয়ে ১৭ এপ্রিল ফিরতি লেগে স্পার্সদের মুখোমুখি হবে তারা। তবে ওই ম্যাচ পর্যন্ত যেতে হয়নি। ৭৮তম মিনিটে গোল করে স্বাগতিকদের জয় এনে দেন সন। ক্রিষ্টিয়ান এরিকসেনের ক্রসের বল ডি-বক্সে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ডিফেন্ডারদের বাঁধা এড়িয়ে আড়াআড়ি শটে লক্ষ্য ভেদ করেন দক্ষিণ কোরিয়ার ফরোয়ার্ড।

ইতোমধ্যে লীগ কাপের শিরোপা জয় করা পেপ গার্দিওলার দলটি এফএ কাপের ফাইনালে পৌঁছে গেছে। প্রিমিয়ার লীগের দৌঁড়েও মোটামুটি সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে তারা। যে কারণে মৌসুমের চার শিরোপা ‘কোয়াড্রোপল’ জয়ের পথে বেশ ভালভাবেই টিকে ছিল। কিন্তু গতকালের এই হার তাদের সেই মনোবলে ছিুুটা হলেও চির ধরিয়েছে। যদিও ফিরতি লেগের ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ এখনো আছে গার্দিওলা বাহিনীর। তারপরও মৌসুমের চার শিরোপা জয়কে ‘অনেকটাই অসম্ভব’ বলে উল্লেখ করেছেন কাতালান কোচ।-বাসস


শেয়ার করে সকল কে জানিয়ে দিনঃ