বেলকুচিতে বিদ্যালয় দপ্তরী নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ

0
71
শেয়ার করে সকল কে জানিয়ে দিনঃ

জহুরুল ইসলাম (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি : সিরাজগঞ্জ বেলকুচি উপজেলার দৌলতপুর বহুমুখী উ্চ্চ বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে পরিচালনা পর্ষদের সভাপতির বিরুদ্ধে।

জানাযায় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি বেলকুচি পৌরসভার মেয়র বেগম আশানুর বিশ্বাস পরিচালনা পর্ষদের অন্যান্য সদস্যদের না জানিয়ে দপ্তরী নিয়োগ দেন।

এ ব্যাপারে পরিচালনা পর্ষদের অভিবাবক সদস্য হামিদ মোল্লা, শাহীন রেজা ও আব্দুল আজিজ জানান, দপ্তরী নিয়োগের ব্যাপারে দুইদিন হলো শুনতেছি যে স্কুলে একজন দপ্তরী নিয়োগ দেয়া হয়েছে, কিন্তু এ ব্যাপারে পরিচালনা পর্ষদের আমরা সদস্য কাউকেই অবগত করেনি। দশ লক্ষ টাকার বিনিময়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষক তাপস কুমার মন্ডল ও সভাপতি আশানুর বিশ্বাসের যোগসাজশে এ নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছে। এ নিয়োগ সম্পর্ন অবৈধ। এ নিয়োগ আমরা মানিনা নিয়োগের বিষয়ে আমরা উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করি এবং এটি সুষ্ঠু প্রক্রিয়ার মাধ্যমে নিয়োগের দাবী জানাই।

নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ সর্ম্পকীত ভিডিওটি দেখতে ক্লিক করুন

বেলকুচিতে বিদ্যালয় দপ্তরী নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ

অত্র বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য আলতাফ হোসেন মেম্বার জানান, দপ্তরী নিয়োগের বিষয়ে সরকারী বিধি বিধান মেনেই নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক জানান, গত ১৭ এপ্রিল আমি লোক মুখে জানতে পারি বিদ্যালয়ে একজন দপ্তরী নিয়োগ দেয়া হয়েছে এ বিষয়ে আমি কিছুই অবগত ছিলামনা।

এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক তাপস কুমার মন্ডলকে বিদ্যালয়ে পাওয়া যায়নি। তার সাথে মুঠোফোনে বার বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়। অত্র বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও বেলকুচি পৌর মেয়র বেগম আশানুর বিশ্বাসের নিকট জানতে চাইলে, টাকার বিষয় অস্বীকার করে বলেন সরকারী বিধি মোতাবেক এ নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে। এখানে কোন প্রকার দূর্নীতি হয়নি।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এস,এম,গোলাম রেজা জানান, নিয়োগ প্রক্রিয়ায় চারজন পরীক্ষার্থী ছিল তাদের মধ্যে যে প্রথম হয়েছে আমি তাকেই সুপারিশ করেছি। নিয়োগ দেয়ার সম্পর্ণ দায়িত্ব পরিচালনা পর্ষদের।


শেয়ার করে সকল কে জানিয়ে দিনঃ