২২৪ আসনের বিধানসভায় কংগ্রেস পেতে পারে ১২৮ আসন

0
28
শেয়ার করে সকল কে জানিয়ে দিনঃ

ক্রাইম অনুসন্দান ডেস্ক : ভারতের কর্ণাটক রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনে জিততে পারে এখন ক্ষমতাসীন কংগ্রেস। সাম্প্রতিক এক জরিপে এ চিত্র উঠে এসেছে।

দক্ষিণী রাজ্য কর্ণাটকের বিধানসভার নির্বাচন ১২ মে। ভোটগণনা ১৫ মে। ২২৪ আসনের এই বিধানসভায় এখন ক্ষমতায় রয়েছে কংগ্রেস। মুখ্যমন্ত্রী সিদ্ধারামাইয়া। ২০১৩ সালে সর্বশেষ বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেস পেয়েছিল ১২২টি আসন। বিজেপি পেয়েছিল ৪০টি এবং জনতা দল (ধর্মনিরপেক্ষ) বা জেডিএস পেয়েছিল ৪০টি আসন। এবারে ২২৪টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ২ হাজার ৫৬০ জন প্রার্থী।

‘সি-ফোর’ তাদের তৃতীয় ও সর্বশেষ জনমত সমীক্ষায় সম্প্রতি জানিয়েছে, এবারও ক্ষমতায় ফিরছে কংগ্রেস। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত জরিপ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কংগ্রেস জিততে পারে ১১৮ থেকে ১২৮টি আসনে। বিজেপি পেতে পারে ৬৩ থেকে ৭৩টি আসন। আর আঞ্চলিক দল জনতা দল (এস) পেতে পারে ২৯ থেকে ৩৬টি আসন। আর অন্যদের পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ২ থেকে ৭টি আসন। গত ২০ থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত কর্ণাটকের ৬১টি আসনের ৬ হাজার ২৪৭ জন ভোটারের মতামত নিয়ে সি-ফোর তৈরি করেছে এই সমীক্ষা প্রতিবেদন।

এর আগে গত এপ্রিলে কর্ণাটকের বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে টাইমস নাউ এবং এবিপি-সিএসডিএস দুটি পৃথক জনমত সমীক্ষায় ইঙ্গিত দিয়েছিল, কংগ্রেস বা বিজেপি কারও পক্ষে এবার এককভাবে ক্ষমতায় যাওয়া সম্ভব হবে না। ক্ষমতায় যেতে হবে আঞ্চলিক দলের সমর্থন নিয়ে। বিধানসভা হবে ঝুলন্ত। কর্ণাটকের বড় আঞ্চলিক দল সাবেক প্রধানমন্ত্রী এইচডি দেবগৌড়ার গড়া জনতা দল (এস) বা জনতা দল ধর্মনিরপেক্ষ। টাইমস নাউ-ভিএমআর তাদের সমীক্ষা প্রতিবেদনে বলেছিল, কংগ্রেস পেতে পারে ৯১টি আসন আর বিজেপি পেতে পারে ৮৯টি আসন। তৃতীয় স্থানে থাকবে জেডিএস। তারা পেতে পেতে পারে ৪০টি আসন।

অন্যদিকে, এবিপি-সিএসডিএস তাদের সমীক্ষায় বলেছিল, কংগ্রেস পেতে পারে ৮৫ থেকে ৯১টি আসন। বিজেপি পেতে পারে ৮৯ থেকে ৯৫টি আসন। আর জেডিএস-বিএসপি জোট পেতে পারে ৩২ থেকে ৩৮টি আসন।

কর্ণাটক ইলেকশন ওয়াচ এবং দিল্লির অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্রেটিক রিফরমস বা এডিআর তাদের এক সমীক্ষা প্রতিবেদনে বলেছে, এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থীদের মধ্যে ৩৯১ জনের বিরুদ্ধে রয়েছে ফৌজদারি মামলা। আর এই প্রার্থীর মধ্যে রয়েছেন ৮৮৩ জন কোটিপতি। মনোনয়নপত্র জমা দেওয়াকালে প্রার্থীদের পেশ করা হলফনামা পর্যালোচনা করে এই প্রতিবেদন তৈরি করেছে দুটি প্রতিষ্ঠান। আজ মঙ্গলবার সেই প্রতিবেদন সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছে।

ইলেকশন ওয়াচ ও এডিআরের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফৌজদারি অপরাধের শীর্ষে রয়েছে বিজেপি। দ্বিতীয় স্থানে কংগ্রেস এবং তৃতীয় স্থানে জনতা দল (এস বা ধর্মনিরপেক্ষ)। বিজেপির তরফে পেশ করা ২২৩ জন প্রার্থীর মধ্যে ৮৩ জনের বিরুদ্ধে রয়েছে ফৌজদারি মামলা। কংগ্রেসের ২২০ জন প্রার্থীর মধ্যে ৫৯ জন এবং জনতা দলের (এস) ১৯৯ জন প্রার্থীর মধ্যে ৪১ জনের বিরুদ্ধে রয়েছে ফৌজদারি মামলা। সব দল ও নির্দল মিলিয়ে এই সংখ্যা ৩৯১। সর্বশেষ ২০১৩ সালে এই সংখ্যা ছিল ৩৩৪। এবার তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৯১ জনে।

অন্যদিকে, কোটিপতির সংখ্যা এবার ৮৮৩ জন। এর মধ্যে ৪৪৭ জনের রয়েছে ৫ কোটি রুপির বেশি সম্পত্তি। তবে সবচেয়ে বেশি ধনী প্রার্থী কংগ্রেসের। তাদের এই প্রার্থী সংখ্যার হার ৯৪ শতাংশ। বিজেপির ৯৩ শতাংশ। আর এই তালিকার শীর্ষে রয়েছে কংগ্রেস প্রার্থী প্রিয়া কৃষ্ণা। তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ ১ হাজার ২০ কোটি রুপি।


শেয়ার করে সকল কে জানিয়ে দিনঃ