সেনবাগে এবার ৪র্থ শ্রেনীর স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার

0
41
শেয়ার করে সকল কে জানিয়ে দিনঃ

মো: জাহাঙ্গীর আলম, নোয়াখালী প্রতিনিধি: সেনবাগে এবার ৪র্থ শ্রেণীর এক ছাত্রী (১০) ধর্ষণ অভিযোড়গ ওঠেছে ৬৫ বছরের বৃদ্ধের বিরুদ্ধে। ঘটনার পর থেকে ধর্ষক আবুল বসর পলাতক রয়েছে।

বুধবার রাত ১১ টার দিকে সেনবাগ থানা পুলিশ ভিকটিমকে উদ্ধার করে চিকিৎসা ও ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এ ব্যাপারে ভিকটিমের পিতা জহির উদ্দিন বাদি হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতনের ৯ ধারায় মামলা দায়ের করেছে মামলা নং ১৪ তারিখ ১৭.৪.১৯ ইং ।

ওই ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটেছে সেনবাগ উপজেলার মধ্যম মোহাম্মদপুর গ্রামে।
খবর পেয়ে নোয়াখালীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বেগমগঞ্জ -সার্কেল) মো: শাহজাহান শেখ, থানার ওসি তদন্ত আবদুল আলী পাটোয়ারী সহ বিপুল সংখ্যক পুলিশ রাত ১০ টায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং অভিযুক্ত আবুল বসরকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রেখেছেন।

শিশুটির মা জানান,১৫ই এপ্রিল বিকেল ৫ টায় মেয়েটি তার সহপাটিদের নিয়ে খেলছিলো। এ সময় পাশ্ববর্তী মৌলভী বাড়ীর আবুল বসর স্কুল ছাত্রীকে তার বসত ঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে।এবং ঘটনাটি কাউকে না বলার জন্য শাসিয়ে দেয়। ১৬ এপ্রিল বিকেলে শিশুটির সহপাটিরা আগের দিনে বৃদ্বের সাথে কি ঘটেছে জিজ্ঞাসা করলে ঘটনাটি ফাঁস হয়।

১৭ই এপ্রিল বিকেলে শিশুটির অসহায় পিতা জহির কন্যার সাথে আবুল বসরের বিকৃত যৌনাচার ও ধর্ষণের বিচার চেয়ে স্থানীয় লোকজনকে জানিয়ে শালিস বৈঠক ডাকে। পাড়ার লোকজন জড়ো হলেও অভিযুক্ত আবুল বসর বৈঠকে না আসায় রাত পৌনে ১০ টায় বিষয়টি থানায় জানায়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ধর্ষক আবুল বসর পালিয়ে যায়। এর আগে গত ৭ এপ্রিল উপেজেলার ছাতারপাইয়া ইউনিয়নের বসন্তপুর গ্রামের ৩য় শ্রেনীর এক স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়। পুলিশ ধর্ষণের ঘটনার সঙ্গে জড়িত রাজনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করে। বর্তমানে ওই মামলাটি তদন্ত করছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।


শেয়ার করে সকল কে জানিয়ে দিনঃ