বাঘাইছড়িতে শীলা বৃষ্টিতে ফসল ও ঘরবাড়ীর ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

0
63
শেয়ার করে সকল কে জানিয়ে দিনঃ

জগৎ দাশ, বাঘাইছড়ি প্রতিনিধি: রাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলায় প্রচুর পরিমাণ শীলা বৃষ্টির ফলে ফসল ও ঘরবাড়ীর ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি সাধিত হয়েছে। ৯ এপ্রিল মঙ্গলবার দুপুরে হঠাৎ ধমকা হাওয়া ও শীলাবৃষ্টি শুরুহয়। এতে উপজেলার কয়েকশত একর ফসলি জমির ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়।

এদিকে শীলা বৃষ্টির ফলে বাঘাইছড়ি উপজেলার ৮ টি ইউনিয়নে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ একটু বেশী স্থানীয়দের বরাত দিয়ে জানাযায় ইউনিয়ন ও পৌরসদরের প্রায় ৩ শতাধিক টিনের চালা ঘর ছিদ্র হয়ে ফুটো টিনের চালা দিয়ে ঘরে বসে আকাশে মেঘের দৃশ্য দেখা যাচ্ছে।এদিকে কৃষিতে ব্যাপক প্রভাব পরেছে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা যাচ্ছে। মৌসুমি ফল তরমুজ, আম ও কাঠাল লিচুর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

বড় বড় শীলার আঘাতে কয়েক একর জমির হাজারখানেক তরমুজ ফুটো হয়ে গেছে এছাড়াও মুকুল আসা আম, লিচু গাছের সবমুকুল মাটিতে মিশেগেছে। শীলাবৃষ্টির পরপরই স্থানীয় এলাবাসী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোড়ন তুলেছে।কেউ কেউ লিখেছেন হে প্রভু আমাদের এ বিপদ থেকে রক্ষাকরুন, কেউ লিখেছেন জীবনে এত বড় শীলা দেখিনি, ইত্যাদি ইত্যাদি।

আমতলী ইউনিয়নের বাসিন্দা মো: কামাল হোসেন (মাষ্টার) এবং আমতলী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মো: রুবেল আলম জানান শীলাবৃষ্টির ফলে এলাকার বহু ফসল এবং ঘরের চালা ছিদ্র হয়ে ফুটো দিয়ে বাহিরে বৃষ্টি পড়ার আগে ঘরে বৃষ্টির জল পড়বে। এলাকার জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

মুসলিম ব্লক গ্রামের মোটরসাইকেল চালক হুমায়ুন কবির জানান শীলার আঘাতে তার তিনটি ঘরের চালাই ফুটো হয়ে গেছে এতে তার ঘরের সকল মালামাল ভিজে গেছে। করেঙ্গাতলী থেকে পিয়াল দত্ত বলেন আমার বাসস্থানের চালা ৭০% ফুটো হয়েগেছে। এখন বৃষ্টির আতঙ্কে আছি, কোন রকম তেরপাল দিয়ে ডেকে রেখেছি।

বাঘাইছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সম্পাদক ও বাঘাইছড়ি প্রেস-ক্লাব এর সাধারণসম্পাদক মো: গিয়াস উদ্দিন আলমামুন বলেন, আমার বয়সে এত শীলাবৃষ্টি কখনো দেখিনি শীলাবৃষ্টির ফলে ফসলি জমির ফসল ও ঘরবাড়ি অনেক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তিনি আরো বলেন, বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে আলোচনার মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সহযোগীতার চেষ্টা করা হবে।

এদিকে অধিক মনুফার অর্জনের আসায় থামাক চাষীদের ক্ষতি হয়েছে ব্যাপক হারে। এভারের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে হিমশিম খেয়ে যাবে তারা।

এব্যপারে কৃষি অফিস সূত্রে যানাযায়, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির কথা শুনেছি আগামিকাল(বুধবার)সকল ব্লক সুপারদের সাথে আলোচনা করে সঠিক তথ্য জানাযাবে। এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, বুধবার সরেজমিনে খবরা খবর নেওয়ার কথা বলেছেন।


শেয়ার করে সকল কে জানিয়ে দিনঃ