নারী স্বাস্থ্যকর্মী ও ডিসি অফিসের কর্মচারী করোনায় আক্রান্ত


আলোর যূগ রিপোর্ট : ঢাকার ধামরাই উপজেলায় করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত দু’জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ধামরাইয়ের হাজীপুর পালপাড়া গ্রামের শামীম হোসেন নামের এক ব্যক্তি এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক নারী কর্মী রয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেন ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নূর রিফফাত আরা। এ ঘটনায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেশনে ভর্তি করা হয়েছে এবং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তারসহ ২০ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে।

করোনা শনাক্ত রোগীর বাড়ি ধামরাই সদর ইউনিয়নের হাজীপুর গ্রামের শামীম হোসেন। তিনি ঢাকা জেলা প্রশাসকের সাধারণ শাখার অফিস সহকারী এবং অপরজন ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিকেট কাউন্টারে কর্মরত আয়শা আক্তার ময়না করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নূর রিফফাত আরা জানান, গত কয়েকদিন আগে শামীম নিজ গ্রামের বাড়িতে অসুস্থ হয়ে পড়েন। খবর পেয়ে গত ১৩ এপ্রিল ধামরাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নূর রিফফাত আরাসহ একটি টিম গিয়ে ওই ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করে এবং নারী স্বাস্থ্যকর্মীসহ কয়েকজনের নমুনা পরীক্ষার জন্য আইইডিসিআরে পাঠানো হয়। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদের রিপোর্ট পজেটিভ আসে। ধারণা করা হচ্ছে আক্রান্ত শামীম হোসেনের মাধ্যমে ওই নারী স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।তিনি জানান, যারা করোনা পজিটিভ রোগীর সংস্পর্শে আসার সম্ভাবনা আছে, তাদেরকে আইসোলেশনে রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে। আমাদের স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেরও অনেক কর্মকর্তা হোম কোয়ারেন্টাইনে যাচ্ছে। এছাড়া আক্রান্ত দুজনের বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করেছে ধামরাই উপজেলা প্রশাসন। এ ঘটনায় ধামরাইয়ে অনেকের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।