অনাকাঙ্ক্ষিত রেকর্ড সাকিবকে ছাড়িয়ে গেলেন মুশফিক

0
11

আলোর যুগ স্পোর্টসঃ পাকিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ব্যর্থতার জবাব ব্যাটে দিলেন জাতীয় দলের অন্যতম তারকা মুশফিকুর রহিম। দলের বিপর্যয়ের মুখে লিটন দাসকে নিয়ে বড় জুটি গড়েন মুশফিক।

লিটন দাস টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির দেখা পেলেও অল্পের জন্য সেঞ্চুরি বঞ্চিত হন মুশফিক। মাত্র ৯ রানের জন্য সেঞ্চুরি বঞ্চিত তিনি।

পাকিস্তানের বিপক্ষে মুশফিকের সেঞ্চুরি না হওয়ার আক্ষেপের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে তার আরো কয়েকটি আক্ষেপ।

চট্টগ্রাম টেস্টে মুশফিকের হাতছানি ছিল দুটি মাইলফলকের। খুব কাছে গিয়েও ধরা দিল না একটিও। উল্টো সঙ্গী হলো অনাকাঙ্ক্ষিত এক রেকর্ড।

দেশের হয়ে সবচেয়ে বেশিবার ‘নার্ভাস নাইন্টিজ’-এ আটকা পড়ার রেকর্ড এখন মি. ডিপেন্ডেবলের।

এছাড়া মাত্র ১ রানের জন্য তামিমকে ছোঁয়া হলো না তার। বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেটে এ মুহূর্তে সর্বোচ্চ রান তামিমের,  ৪৭৮৮ রান। আর সাগরিকায় ৯১ রানের ইনিংসের পর মুশফিকের এখন সংগ্রহ ৪৭৮৭ রান।

তবে আজ ‘নার্ভাস নাইন্টিজ’-এ আউট হয়ে হতাশার এক রেকর্ড গড়লেন মুশফিক। এই নিয়ে টেস্ট ক্রিকেটে নব্বই ছুঁয়েও মুশফিক সেঞ্চুরিতে যেতে পারলেন না ৪ বার। আর আন্তর্জাতিকে তিন ফরম্যাট মিলিয়ে ৮ বার। দুটিই বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ।

একটি রেকর্ডে তিনি স্পর্শ করেছেন সাকিব আল হাসানকে, আরেকটিতে ছাড়িয়েই গেছেন তাকে।

সাকিবও টেস্টে নব্বইয়ে আটকে গেছেন ৪ বার। তিন ফরম্যাট মিলিয়ে তার এই অভিজ্ঞতা হয়েছে ৭ বার।

তামিম ইকবাল টেস্টে নব্বইয়ে থমকে গেছেন ৩ বার, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মোট ৬ বার।

মুশফিক শতক থেকে ১৮ রান দূরে থেকে দ্বিতীয় দিন শুরু করেছিলেন। ৯ রান যোগ করে ফাহিম আশরাফের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন। আম্পায়ার আউট দিলে মুশফিক রিভিউ নেন, কিন্তু লাভ হয়নি। ২২৫ বলে ১১টি চারে ৯১ রান করেন মিস্টার ডিপেন্ডেবল।